রক মনু

হত্যার স্টেটমেন্ট

হত্যার স্টেটমেন্ট পুলিশ দিচ্ছে র‍্যাবের ক্রসফায়ারের প্রেসনোটের ভাষায়; বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী বা ইসলামী ছাত্র শিবির রাজনৈতিক দল হিসাবে যতক্ষণ বৈধ ততক্ষণ তাঁরা মিছিল করার অধিকার রাখে। মিছিল করতে না দিলে সেইটা পুলিশের আক্রমণ, শিবিরের না। এই ইস্যুতে মিডিয়ার মিথ্যাচার নিশ্চই অন্যান্য সত্যরেও মিথ্যা বানাইয়া ফেলবে। ওয়ার ক্রাইমের বিচার বা ফাঁসি যাঁরা চান তাদেরো এই হত্যার …

রক মনু

বাণিজ্য করা শেখেন

আপনি কলু হইতে রাজি হইয়া আছেন কিন্তু বিএনপি আপনার বলদ হইতে রাজি না; তাইলে বেশি বুদ্ধি কার? বিএনপিরে জামাত ছাড়তে সাজেস্ট করেন অনেকেই; শাহবাগ এন্ড গং (মানে শাহবাগ নেটওয়ার্ক) একই আবদার করছেন। বিএনপি-জামাত যুদা করা বহুদিনের আওয়ামী প্লান; ফলে যে-ই জামাত থেকে যুদা হইতে বলবে বিএনপি তারেই ভাববে আওয়ামী লীগের বাছুর; অন্য কিছু ভাবার কোন …

রক মনু

ইতিহাসের বড়ো ঘটনাগুলি বেশ কিছু এক্সিট বানায়

ইতিহাসের বড়ো ঘটনাগুলি বেশ কিছু এক্সিট বানায়; যেমন, মেহেরজান ইস্যুতে ড. সলিমুল্লাহ খান একটা এক্সিট পাইছিলেন; তখন প্রমাণ করতে পারছিলেন যে, উনি বাইরের কেউ নন–উপর্যপুরি জাতিয়তাবাদী-ই; বাইরের কেউ বলতে পাকিস্তানগন্ধী, বিএনপি ঘেঁষা ভারতবিরোধী বা ‘বাঙালি মুসলমান’ নামের বিরুদ্ধ প্রজেক্টের বুদ্ধিবেলুন। ফলে বাঙালি জাতিয়তাবাদীরা ওনার কথাগুলিরে ‘আত্ম-সমালোচনা’ হিসাবেই দেখতে পারা শুরু করছিলেন, শত্রুতা না আদৌ! আগামী …

রক মনু

ড. খানরে দিয়া দলে জনসংখ্যা বাড়াইবেন মাত্র

‘শিক্ষিত‘ লোক হইয়াও ফরহাদ মজহার সারা পৃথিবীকে কি করিয়া এহেন নির্বোধ ভাবিলেন ভাবিয়া অবাক হইতে হয়।/সলিমুল্লাহ খান; এইটা জাস্ট ফরহাদ মজহার বিষয়ে ড. খানের মন্তব্য না। তারচে বেশি ‘অশিক্ষিত’ মানুষরে ড. খান কিভাবে বোঝেন সেই সমাচারও। ড. খান বলছেন যে ‘অশিক্ষিত’ মানুষেরা নির্বোধ হবে, তাতে অবাক হবার কিছু নাই; কেননা, সেইটাই স্বাভাবিক। ‘অশিক্ষিত’ মানুষদের ‘নির্বোধ’ …

রক মনু

আবেদ আর ইউনূসের নিরবতা

বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে ড. ইউনূস বা ফজলে হাসান আবেদ নিরবতা দিয়া দেশের বিরাট উপকার করছেন। এখন ওনাদের যেকোন কথা সারাদেশে ছড়ানো গ্রামীণ ব্যাংকের শাখা আর ব্রাক সেন্টারগুলিকে আক্রমণের লক্ষ্য করে তুলতে পারে, আক্রমণ যেকোন পক্ষ থেকেই হওয়া সম্ভব। এমন একটা আক্রমণ বাংলাদেশরে অকার্যকর স্টেট হিসাবে আন্তর্জাতিক প্রচারণারে জোরদার করবে। ওনারা নিরব থাকায় আমি খুশি। [iframely …

রক মনু

মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ-বিপক্ষ ভাগ কইরেন না

পলিটিক্যাল শত্রু-মিত্র চিনতে দেশের সার্বভৌমত্ব বা সভ্রেইনটির ধারনা ব্যবহার করেন; এখন আর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ-বিপক্ষ ভাগ কইরেন না; কেননা, মুক্তিযুদ্ধ নাই, শেষ হইয়া গেছে। এখনো মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ-বিপক্ষ ভাগ একান্ত আওয়ামী প্রকল্প; কারণ, এই ভাগ দিয়া আওয়ামী লীগ ছাড়া বাকি সবাইকে বিপক্ষে রাখা যায়। কিন্তু বিপক্ষ দিয়া যা মিন করা হয় তেমন কিছু বিএনপি করে নাই; একাধিকবার …