রক মনু

নন্দিত নরকে কেন ছফার পছন্দ?

‘নন্দিত নরকে’, হূমায়ুনের এই কাহিনিতে ভিলেন কে? নায়ক?

লেখকের বয়ান আর পপুলার পারসেপশন বা ভাবনা মোটামুটি একই: মন্টু হইলেন নায়ক, আর ভিলেন মাস্টার চাচা। আহমদ ছফা কইছেন, হূমায়ুনের সেরা দুইটার একটার নাম নন্দিত নরকে। আমাদের নায়ক-ভিলেন, ছফার বিচার আর হূমায়ুনের এসথেটিক/মরাল প্রস্তাব, এইগুলা বিচার কইরা একটু দেখা দরকার আমাদের; কেমন সমাজ-কালচার বানাইতে চাই আমরা, সেইটা ঠিক করতে আমাদের আইডিয়ালগুলা বোঝা দরকার না!

-------------------------

মন্টু কেন নায়ক? কারণ, মন্টু মাস্টার সাবকে খুন করলো। এইটাই কিন্তু সব না। মন্টু ফেমিলির ইজ্জত কোরবানি দিয়া নিজে বাঁচতে চায় নাই, পুলিশ বা আদালতে সে কিছুই কয় নাই রাবেয়ার ব্যাপারে। মন্টু তাইলে আমাদের একটা ছবক দিতেছে–নিজের জানের চাইতে ফেমিলির ইজ্জত দামি। কিন্তু ফেমিলির ইজ্জত তাইলে কেমনে যায় মন্টু/হূমায়ুন/সমাজ/ছফার মতে? বিয়ার বাইরে বোন সেক্স করলে ফেমিলির ইজ্জত যায়, আবিয়াতো বোন পোয়াতি হইলে ইজ্জত যায়, যত বেশি লোক জানে, তত বড় জখম হয় ফেমিলির ইজ্জতে!

ওকে। কিন্তু মন্টু কেন খুন কইরাও নায়ক? কারণ, এই খুনটা হইলো ইনসাফ। খুন কইরাও নায়ক কইলে ঠিক হয় না আসলে! ইনসাফের দরকারে খুন কইরাই নায়ক হইতে পারলো মন্টু। বাংলাদেশের আইনে ক্যাপিটাল পানিশমেন্টের নিন্দা যারা করেন, তারা আমাদের সমাজে ইনসাফের লগে খুনের এই নেসেসারি রিশতায় নজর দেন প্লিজ! মন্টু দেখাইয়া দিতেছে, এই খুনটা না করলে ইনসাফ হয় না। তাই ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট ছাড়া দেশের আইনে ইনসাফ কায়েম হইতে পারে না, জনতার ইনসাফের ভাবনায় খুন খুবই দরকারি।

তাইলে হিসাব করেন। খুন কইরা নায়ক হইলো মন্টু, ইনসাফের ঐ আইডিয়ায় এই খুনটা আসলে জাস্টিস বা ইনসাফ। ইউরোপের দুয়েকটা দেশে ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট নাই, সেইসব দেশে দেখবেন, পপুলেশন গ্রোথরেট অলরেডি মাইনাস বা মাইনাসের দিকে যাইতেছে! কিন্তু আসল দেখবার ব্যাপার হইলো, আইনে থাক বা না থাক, পপুলার কালচারে ইনসাফের দরকারে খুন পাইবেন প্রায় সব দেশেই! এমনকি বৌদ্ধদের সিনে-কালচারেও পাইবেন!

সো, মন্টুর এই খুনের কারণে তার নায়ক হওয়া আটকায় না, সেই জামানা অন্তত আসে নাই এখনো! বরং এই খুনই তারে নায়ক বানাইতেছে, প্রায় সব কালচার মোতাবেক!

কিন্তু আমাদের দেখতে হবে আরেকটা ব্যাপার। মাস্টারের পাপ কি? রাবেয়ার জীবনে দুইটা মহা ঘটনায় মাস্টারের দায় কতটা? এই দুই ঘটনা হইলো, রাবেয়ার পোয়াতি হওয়া এবং মরণ। কেবল মরণ না, রাবেয়া আসলে খুন হইছেন। রাবেয়ার খুনী কে?

কাহিনির সাজেশন হইলো, রাবেয়ার পোয়াতি হওয়া এবং মরণ/খুনের দায় পুরাটাই মাস্টারের। বিচার করেন এখন।

রাবেয়ার খুনী তার বাপ-মা/ফেমিলি। রাবেয়ার মরণে আপনাদের কয়জনের রাগ তার ফেমিলির উপর পড়ছে? রাবেয়ার খুনে তার ফেমিলির পাপ খেয়াল করছেন কয়জন?

যদি নজরেই না পড়ে, সেইটা যেমন আপনাদের/রিডারের দায়, তেমনি হূমায়ুনেরও। কাহিনিতে রাবেয়া এবং তার ফেমিলিরে ভিকটিম হিসাবে হাজির করছেন হূমায়ুন, সেইটাই রিডারের নজরে বালি ছিটাইয়া দিছে। এমন যদি সাজেশন থাকতো যে, রাবেয়ারে খুনের সাজা হিসাবেই তার ফেমিলি মন্টুর ফাঁসি পাইলো, তাইলেও কইতে পারতেন ইনসাফ হইছে! কিন্তু হূমায়ুনের সাজেশন পুরা উল্টা, এরা সবাই ভিকটিম, রাবেয়ার ফেমিলি রাবেয়ার দোস্ত/ফ্রেন্ড, ভিলেন হইলো কেবল মাস্টার!

হূমায়ুন মনে হয়, রাবেয়ার মরণকে খুন হিসাবেই দেখান নাই আদৌ; দেখাইলেও সেই পাপ দিছেন মাস্টারের কান্ধেই। খেয়াল করলে দেখবেন, আমাদের সমাজে এইটা কমন! এমন ঘটনায় অনার-কিলিং ভারত-পাক-বাংলাদেশে ফেমিলির খুন হিসাবে দেখে না সমাজ! হূমায়ুন সেই এসথেটিক্স রিপ্রোডিউস করেন, ছফা সেইটারে সার্টিফাই করেন।

এখন মাস্টারের আসল পাপ/ক্রাইম লইয়া ভাবেন। মাস্টার কি রেপিস্ট? তেমন কোন ইশারা কাহিনিতে নাই আদৌ! রাবেয়ার সাইকো-ফিজিক্যাল দশার বিচারে কইতে হয়, ঐ ইন্টারকোর্স কনসেন্সুয়াল আছিল! রাবেয়া হ্যাপি, নিজের বাচ্চার নাম লইয়াও সে ভাবে! ঘটনার পরে কোন নালিশ নাই, পেইন নাই, রাবেয়া হাসিখুশি। মেমোরি লস? না।

কিন্তু রাবেয়া সুস্থ না, তার ভালো-মন্দ বিচারের খমতা নাই, ঘটনা এবং তার ফল বোঝে না সে। মাস্টার তারে রাজি করাইছেন, রাবেয়া তাতে মজাও পাইছে সম্ভবত! রাবেয়ার রিঅ্যাকশনে তেমন সাজেশনই দিছেন হূমায়ুন!

মাস্টার তবু ক্রিমিনাল; কেননা, সে তার কামের দায় লয় নাই, রাবেয়ারে যখন খুন করে তার ফেমিলি, মাস্টার সেইটারে না দেখার ভান করছেন! এমন অসুস্থ মানুষের লগে অতোটা ইন্টিমেট হবার পরেও মাস্টার ব্যাপারটারে এড়াইতে চাইছেন, এইটা স্রেফ পাপ, যে কোন বিচারে! উনি অন্তত যদি কাপুরুষ হন, তাইলেও যৌনশিক্ষাটা ভালো থাকা দরকার আছিল তার!

সমাজ যারে অমানুষ কয়, মাস্টার তেমনই, খারাপ মানুষ, আশপাশে এমন মানুষ থাকা আসলেই ডরাবার মতো ঘটনা! কিন্তু মাস্টার যতই খারাপ হৌক, সে রেপ করে নাই; খুনও করে নাই রাবেয়ারে!

মন্টু তারে খুন করলো; রাবেয়ার খুনীদের কিছুই করলো না মন্টু! রাবেয়ার বাচ্চার খুনীরাও হূমায়ুন এবং মন্টুর বিচারে কোন সাজা পায় না! হূমায়ুনকে অবশ্য একটু ছাড় দেওয়া যায়; উনি হয়তো ডাইরেক্ট না কইলেও, কোন ইশারা না দিলেও মন্টুর ফাঁসিরেই ফেমিলির সাজা হিসাবে দেখাইছেন কাহিনিতে!

এখন তাইলে ভাবি, মন্টু কি করতে পারতো আর! এক নম্বরেই কইতে হয়, ফেমিলির ইজ্জতের তুলনায় রাবেয়ারে আরেকটু ভালবাসতে পারতো মন্টু! রাবেয়ারে বাঁচাবার চেষ্টা করতে পারতো, রাবেয়ার বাচ্চারেও! ফেমিলির ইজ্জত একটু মেরামত করতে মাস্টারের লগে রাবেয়ার বিয়ার চেষ্টা করতে পারতো সে। অন্তত বাপ-মারে রাবেয়ার খুনী কইয়া, তাগো মুখে থুথু দিয়া মাস্টারকে খুন কইরা জেলে যাইতে পারতো সে!

এর সবগুলা অপশন মন্টুর আছিলো না হয়তো! খুনের টাইমে আছিল না মন্টু। রাবেয়া যে পোয়াতি, আদৌ জানতো কি সে? রাবেয়ার লগে মাস্টারের কায়কারবার?

আমরা জানি না এইসব পোশ্নের জবাব, হূমায়ুন কন নাই। হূমায়ুন কেবল জানাইছেন, মাস্টারের লগে এক রুমে থাকতো মন্টু। মুরুব্বীদের যৌন খাসলত এমন এক রুমে থাকার টাইমে প্রায়ই টের পায় বাচ্চারা, কখনো বা ভিকটিম হয়, কখনো বা জয়েন করে। বাই-সেক্সুয়ালিটি আমাদের সমাজে আছে হূমায়ুনেরই ঘেটুপুত্র কমলায় দেখা যাইতেছে, সমাজে চালু কতগুলা গালির মাঝেও হোমোসেক্সুয়ালির রেফারেন্স আছে। মন্টুর লগে মাস্টার যা করতেন তাতে রাবেয়ার ব্যাপারে মন্টু হয়তো কনফার্ম আছিল!

এইসব ব্যাপারে হূমায়ুন কোন ইশারা দেন নাই। কিন্তু কাহিনিতে আমরা এতোটা অন্তত পাইতেছি যে, মন্টু রাবেয়ার খুন বা নিজের মরণের তুলনায় ফেমিলির ইজ্জতকে বড় কইরা দেখছে। বিয়ার বাইরে বোনের সেক্স-পোয়াতি হওয়াকে এতোটাই খারাপ এবং ফেমিলির ইজ্জতে হামলা হিসাবে দেখতেছে যে, বাপ-মার খুন দুইটা নজরেই পড়তেছে না তার। এমন অসুস্থ বোনের কি সেক্সলাইফ থাকা উচিত আদৌ, এমন বোনের নাগর–যে কিনা বোনের পসিবল প্লেজারের উছিলা, সেই নাগরকে কেমনে দেখা উচিত, সেই ব্যাপারেও মন্টুর পজিশন খুবই কট্টর। রাবেয়ারে খুন করলো ফেমিলি, ইনসাফ কায়েম করতে সেই খুনের দায় মাস্টারকে দিয়া মন্টু তারে খুন করলো।

কাহিনির চরিত্রগুলারে হূমায়ুন এমনভাবেই আঁকলেন যেইখানে মা-বাপ ভালো, ভাই ভালো, বোন ভালো, মন্টু হিরোইক ভালো, রাবেয়াকে তারা সবাই ভালোবাসে। মাস্টার হইলো সেই খারাপ যে এই ফেমিলিটারে ছারখার কইরা দিছে! স্রেফ একটা বিয়াতেই যেইটার ফয়সালা হইতে পারতো, সেইখানে মরলো ৪ জন!

নায়কের ব্যাপারে এই এসথেটিক প্রস্তাব দেওয়া কাহিনিটারেই লোকে কইতেছে ওনার সবচে ভালো কেচ্ছার একটা। তা হইতেই পারে, কিন্তু এমন নায়ককে আইডিয়াল ধইরা আগামীর সমাজ যেন না বানাই আমরা।

১৯জুলাই ২০১৮